Breaking News
* 'দেশের বিভিন্ন স্থানে মৃদু ভূমিকম্প অনুভূত' * 'শিক্ষক পদে নিয়োগের চূড়ান্ত সুপারিশ পেলেন ৩৪ হাজার' * 'দেশে করোনায় আরো মৃত্যু ১২, শনাক্ত ১১,৪৩৪' * 'র‌্যাব কাজেকর্মে অত্যন্ত দক্ষ, জনগণের আস্থা অর্জন করেছে': পররাষ্ট্রমন্ত্রী * 'করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে ৬ দফা জরুরি নির্দেশনা' * 'হজরত মুহাম্মদ (সা:)কে নিয়ে অপমানজনক পোস্ট শেয়ার করায় এক নারীর মৃত্যুদণ্ড' * 'রাশিয়ার জন্য চরম বিপর্যয় অপেক্ষা করছে' * 'ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা তৈরি করলো তুরস্ক' * 'আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ' * 'মাতুয়াইলে বাসচাপায় একই পরিবারের ৩ যাত্রী নিহত'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বাধিক আলোচিত

POOL

বিচার ব্যবস্থার যত উন্নয়ন সব আওয়ামী লীগের সময়েই হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আপনি কি তাঁর সাথে একমত?

Note : জরিপের ফলাফল দেখতে ভোট দিন

'লকডাউনের সময় পার্টি করায় ক্ষমা চেয়েছেন বরিস জনসন'

13-01-2022 | 12:18 am
আন্তর্জাতিক

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে লকডাউনের সময় পার্টি করায় ক্ষমা চেয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে লকডাউনের সময় পার্টি করায় ক্ষমা চেয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তবে এতেও ক্ষোভ মেটেনি বিরোধীদের। সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছেন তারা। খবর রয়টার্সের।

২০২০ সালের ২০ মে প্রথম লকডাউনের সময় ডাউনিং স্ট্রিটে নিজের সরকারি বাসভবনে ‘ব্রিং ইয়োর ওন বুজ’ (নিজের মদ নিজে আনো) পার্টিতে যোগ দিয়েছিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। অথচ সেই সময় তার সরকারের জারি করা সামাজিক দূরত্বের বিধি অনুসারে একসঙ্গে বেশি লোক জড়ো হওয়ায় নিষেধাজ্ঞা চলছিল।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) ব্রিটিশ পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে মলিন মুখে বরিস জনসন বলেছেন, এ ঘটনায় কতটা ক্ষোভ ছড়িয়েছে, তা তিনি বুঝতে পারছেন।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি জানি, তারা আমার নেতৃত্বে থাকা সরকারের ওপর কতটা ক্ষুব্ধ। তারা মনে করছেন, ডাউনিং স্ট্রিটে যারা নিয়ম তৈরি করে, তারাই সেটি ঠিকভাবে অনুসরণ করে না।

পার্টিতে যাওয়ার ওই সিদ্ধান্তের জন্য অনুতপ্ত জানিয়ে বরিস জনসন বলেন, আমি সেদিন সন্ধ্যায় ৬টার পরে গার্ডেনে গিয়েছিলাম একদল কর্মীকে ধন্যবাদ জানাতে। ২৫ মিনিট পরেই ফিরে আসতাম। পারতপক্ষে, আমারই সবাইকে ভেতরে ফেরত পাঠানো উচিত ছিল।

এ ঘটনায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে মিথ্যাবাদী উল্লেখ করে তার পদত্যাগ দাবি করেছেন বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা কেইর স্টার্মার। তার কথায়, পার্টি শেষ, প্রধানমন্ত্রী! মাসের পর মাস প্রতারণা ও ছলচাতুরির পর রাস্তা ফুরিয়ে গেছে। অথচ তিনি বুঝতেও পারলেন না, তার পার্টিতে থাকা হাস্যকর। এটি ব্রিটিশ জনগণের জন্য খুবই আপত্তিকর।

কমেন্ট

<<1>>

নাম *

কমেন্ট *

সম্পর্কিত সংবাদ

© ২০১৬ | এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি | dainikprithibi.com
ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট - মোঃ রেজাউল ইসলাম রিমন