Breaking News
* 'দুর্নীতি করে কেউ যেন পার না পায়': রাষ্ট্রপতি * 'নিউইয়র্কের পথে হেলসিঙ্কি ত্যাগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী' * 'গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনের দৃষ্টি আড়ালের ষড়যন্ত্র করছে সরকার' * 'কোনো দেশ না চাইলে জাতিসংঘ সহায়তা দিতে পারে না' * 'কাবুলে নারী কর্মীদের বাড়িতে থাকার নির্দেশ দিয়েছে তালেবান' * 'বিএনপি নতুন কৌশলে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে': কাদের * 'বাংলাদেশ ব্যাংক দিয়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় অস্ত্র ব্যবহার করা হচ্ছে' * 'ই-কমার্স ব্যবসাকে আইনের আওতাভুক্ত করতে হবে': অ্যাটর্নি জেনারেল * '১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদে ২৩ সেপ্টেম্বর দেশব্যাপী বিক্ষোভ' * 'আওয়ামী লীগ ৪৩ জন ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বাধিক আলোচিত
ইতিহাসের এই দিনে, ২০ সেপ্টেম্বর 'দ্বিতীয় দফায় সিরিজ বৈঠকে বসছে বিএনপির হাইকমান্ড' 'গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনের দৃষ্টি আড়ালের ষড়যন্ত্র করছে সরকার' 'কোনো দেশ না চাইলে জাতিসংঘ সহায়তা দিতে পারে না' 'কাবুলে নারী কর্মীদের বাড়িতে থাকার নির্দেশ দিয়েছে তালেবান' 'নিউইয়র্কের পথে হেলসিঙ্কি ত্যাগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী' 'দুর্নীতি করে কেউ যেন পার না পায়': রাষ্ট্রপতি 'বাংলাদেশ ব্যাংক দিয়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় অস্ত্র ব্যবহার করা হচ্ছে' 'ই-কমার্স ব্যবসাকে আইনের আওতাভুক্ত করতে হবে': অ্যাটর্নি জেনারেল '১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদে ২৩ সেপ্টেম্বর দেশব্যাপী বিক্ষোভ'

POOL

বিচার ব্যবস্থার যত উন্নয়ন সব আওয়ামী লীগের সময়েই হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আপনি কি তাঁর সাথে একমত?

Note : জরিপের ফলাফল দেখতে ভোট দিন

'এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান রাগীব আহসানকে গ্রেপ্তার'

10-09-2021 | 04:44 pm
আইন ও আদালত

১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে আলোচিত এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান রাগীব আহসানকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

ঢাকা: ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে আলোচিত এহসান গ্রুপের চেয়ারম্যান রাগীব আহসানকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

শুক্রবার সকালে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার উপ-পরিচালক মেজর হুসাইন মোহাম্মদ রইসুল আজম মনি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, পিরোজপুরের এহসান রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডার্স লিমিটেড প্রতারণার মাধ্যমে লক্ষাধিক গ্রাহকের কাছ থেকে ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে। এমন অভিযোগেই রাগীব আহসান ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে কোথা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তা জানাননি তিনি। বলেন, দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে।

এদিকে গ্রাহকের ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনায় রবিবার সংবাদ সম্মেলন করেন ভুক্তভোগীরা। তাদের দাবি, এহসান রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডার্সের পক্ষে ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুফতী রাগীব আহসান এলাকার মানুষের সঞ্চয়ী হিসাব চালু করেন। জমা করা টাকার ওপর মাসিক মুনাফা দেয়ার কথা বলে পাশ বইসহ বিভিন্ন ডকুমেন্ট দিয়ে টাকা জমা নেন। পিরোজপুর জেলাসহ এলাকার মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে কয়েকমাস মাসিক মুনাফা দেয়ার পর তা বন্ধ করে দেয়। এরপর নানান কথায় সময় পার করতে থাকেন।

এক পর্যায়ে ভুক্তভোগীরা টাকা ফেরত চাইলে নানা অজুহাতে টালবাহানা শুরু করে। এভাবে প্রায় তিন বছর চলার পর টাকা-পয়সা না দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দেয়। ২০১৯ সালে রাতের আঁধারে পিরোজপুর জেলার শের-ই-বাংলা পাবলিক লাইব্রেরির ৪র্থ তলায় এহসান গ্রুপের প্রধান অফিস তালাবদ্ধ করে দেয়। পরে জানা যায়, অফিস বন্ধের আগেই তারা অফিসের সব ডকুমেন্ট সরিয়ে ফেলে।

জানা গেছে, একসময় মসজিদে ইমামতি করতেন মাওলানা রাগীব। পরে ঢাকার একটি এমএলএম কোম্পানিতে কাজ নেন। সেই অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে তিনি গড়ে তোলেন এহসান গ্রুপ। তার তিন ভাই, বোন, তার শ্বশুর, বোন জামাইসহ নিকটাত্মীয়দের প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে বসান রাগীব।র‍্যাব।

শুক্রবার সকালে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার উপ-পরিচালক মেজর হুসাইন মোহাম্মদ রইসুল আজম মনি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, পিরোজপুরের এহসান রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডার্স লিমিটেড প্রতারণার মাধ্যমে লক্ষাধিক গ্রাহকের কাছ থেকে ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে। এমন অভিযোগেই রাগীব আহসান ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে কোথা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তা জানাননি তিনি। বলেন, দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হবে।

এদিকে গ্রাহকের ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনায় রবিবার সংবাদ সম্মেলন করেন ভুক্তভোগীরা। তাদের দাবি, এহসান রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডার্সের পক্ষে ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুফতী রাগীব আহসান এলাকার মানুষের সঞ্চয়ী হিসাব চালু করেন। জমা করা টাকার ওপর মাসিক মুনাফা দেয়ার কথা বলে পাশ বইসহ বিভিন্ন ডকুমেন্ট দিয়ে টাকা জমা নেন। পিরোজপুর জেলাসহ এলাকার মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে কয়েকমাস মাসিক মুনাফা দেয়ার পর তা বন্ধ করে দেয়। এরপর নানান কথায় সময় পার করতে থাকেন।

এক পর্যায়ে ভুক্তভোগীরা টাকা ফেরত চাইলে নানা অজুহাতে টালবাহানা শুরু করে। এভাবে প্রায় তিন বছর চলার পর টাকা-পয়সা না দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দেয়। ২০১৯ সালে রাতের আঁধারে পিরোজপুর জেলার শের-ই-বাংলা পাবলিক লাইব্রেরির ৪র্থ তলায় এহসান গ্রুপের প্রধান অফিস তালাবদ্ধ করে দেয়। পরে জানা যায়, অফিস বন্ধের আগেই তারা অফিসের সব ডকুমেন্ট সরিয়ে ফেলে।

জানা গেছে, একসময় মসজিদে ইমামতি করতেন মাওলানা রাগীব। পরে ঢাকার একটি এমএলএম কোম্পানিতে কাজ নেন। সেই অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে তিনি গড়ে তোলেন এহসান গ্রুপ। তার তিন ভাই, বোন, তার শ্বশুর, বোন জামাইসহ নিকটাত্মীয়দের প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে বসান রাগীব।

কমেন্ট

<<1>>

নাম *

কমেন্ট *

সম্পর্কিত সংবাদ

© ২০১৬ | এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি | dainikprithibi.com
ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট - মোঃ রেজাউল ইসলাম রিমন