Breaking News
* 'দুর্নীতি করে কেউ যেন পার না পায়': রাষ্ট্রপতি * 'নিউইয়র্কের পথে হেলসিঙ্কি ত্যাগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী' * 'গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনের দৃষ্টি আড়ালের ষড়যন্ত্র করছে সরকার' * 'কোনো দেশ না চাইলে জাতিসংঘ সহায়তা দিতে পারে না' * 'কাবুলে নারী কর্মীদের বাড়িতে থাকার নির্দেশ দিয়েছে তালেবান' * 'বিএনপি নতুন কৌশলে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে': কাদের * 'বাংলাদেশ ব্যাংক দিয়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় অস্ত্র ব্যবহার করা হচ্ছে' * 'ই-কমার্স ব্যবসাকে আইনের আওতাভুক্ত করতে হবে': অ্যাটর্নি জেনারেল * '১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদে ২৩ সেপ্টেম্বর দেশব্যাপী বিক্ষোভ' * 'আওয়ামী লীগ ৪৩ জন ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বাধিক আলোচিত
ইতিহাসের এই দিনে, ২০ সেপ্টেম্বর 'দ্বিতীয় দফায় সিরিজ বৈঠকে বসছে বিএনপির হাইকমান্ড' 'গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনের দৃষ্টি আড়ালের ষড়যন্ত্র করছে সরকার' 'কোনো দেশ না চাইলে জাতিসংঘ সহায়তা দিতে পারে না' 'কাবুলে নারী কর্মীদের বাড়িতে থাকার নির্দেশ দিয়েছে তালেবান' 'নিউইয়র্কের পথে হেলসিঙ্কি ত্যাগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী' 'দুর্নীতি করে কেউ যেন পার না পায়': রাষ্ট্রপতি 'বাংলাদেশ ব্যাংক দিয়ে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় অস্ত্র ব্যবহার করা হচ্ছে' 'ই-কমার্স ব্যবসাকে আইনের আওতাভুক্ত করতে হবে': অ্যাটর্নি জেনারেল '১১ সাংবাদিক নেতার ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদে ২৩ সেপ্টেম্বর দেশব্যাপী বিক্ষোভ'

POOL

বিচার ব্যবস্থার যত উন্নয়ন সব আওয়ামী লীগের সময়েই হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আপনি কি তাঁর সাথে একমত?

Note : জরিপের ফলাফল দেখতে ভোট দিন

'লালবাগে অনুমোদন ছাড়াই ৯তলা ভবন নির্মাণ'

28-08-2021 | 12:00 pm
বিশেষ প্রতিবেদন

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত লালবাগে ইমারত নির্মান আইন লঙ্ঘন করে ৯ তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মান শেষ করেছেন জয়নাল আবেদীন।

এস এম তাজুল ইসলাম : রাজধানীতে যে কোন ধরনের ভবন নির্মান করতে হলে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) থেকে ভবনের নকশা অনুমোদন নেওয়া বাধ্যতামূলক। কিন্তু রাজউকের এই আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে বহুতল ভবন নির্মানের অভিযোগ উঠেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত লালবাগের জয়নাল আবেদীন নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ইমারত নির্মান আইন লঙ্ঘন করেই ৯ তলা বিশিষ্ট ভবনটি নির্মান শেষ করেছেন জয়নাল আবেদীন। ভবন নির্মানের পর রাজউকের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অবগত হলে পরিদর্শন করেন একটি পর্যবেক্ষন দল। এরপর নকশা নিয়ে রাজউকে হাজির হতে নির্দেশনা দেওয়া হয় জয়নাল আবেদীনকে। কয়েকদফা তলব করার পরও নকশা নিয়ে হাজির হননি ওই ভবন মালিক।

সরেজমিনে দেখা গেছে, লালবাগ রোডের ১১৫/২ নং হোল্ডিংয়ে জয়নাল আবেদীন যেখানে ভবনটি নির্মান করেছেন তার প্রবেশ পথের রাস্তাটি একবারেই সরু। ভবনটিতে যাওয়ার একমাত্র পথ এই সরু রাস্তা। কিন্তু রাজউকের ইমারত নির্মানের বিধিমালায় রয়েছে ৬ তলা পর্যন্ত কোন ভবন নির্মান করতে হলে অন্তত ৮ ফুট ৪ ইঞ্চি বা আড়াই মিটার প্রসস্থ প্রবেশের রাস্তা থাকতে হবে। এছাড়া রাজউকের বিধি অনুযায়ী ভবনের আশপাশে যে পরিমান জায়গা ছাড় দিয়ে ভবন নির্মান করার বিধি রয়েছে ভবনটি নির্মানে এর কোনটাই মানা হয়নি।

নকশা অনুমোদন ছাড়া ও রাজউকের বিধিমালা উপেক্ষা করে ভবন নির্মান প্রসঙ্গে জানতে চাইলে জয়নাল আবেদীন এই প্রতিবেদককে বলেন, রাজউকের নিয়মকানুন মেনেই ভবন নির্মান করেছি। তবে সব নিয়ম মেনে করতে পারিনি । এ বিষয়ে রাজউকের ৫ নং জোনের ইমারত পরিদর্শক ইমরান শেখ বলেন, যেহেতু ভবনটি নির্মানে নকশা অনুমোদন নেয়া হয়নি। ফলে এই সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না। আর নকশা অনুমোদন ছাড়া ভবন নির্মান অবৈধ। তিনি জানান, খবর পাওয়ার পর রাজউক থেকে একটি পর্যবেক্ষন দল পরিদর্শনে গিয়েছেন। বাড়ি মালিক জয়নাল আবেদীনকে মৌখিকভাবে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে নকশা নিয়ে রাজউকে হাজির হতে। কিন্তু একাধীকবার তলব করার পরও তিনি নকশা নিয়ে হাজির হননি।

রাজউকের নকশা অনুমোদন ছাড়া ভবনটি নির্মানে জড়িত প্রকৌশলী মো: জাকির হোসেনের কাছে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমরা রাজউক থেকে অনুমোদিত নকশা দেখে ভবন নির্মান কাজ শুরু করেছি। এরপর সাংবাদিক পরিচয় দিলে তিনি এসব অস্বীকার করে বলেন রাজউক থেকে কোন নকশা অনুমোদন নেওয়া হয়নি। আমরা স্ট্রাকচার করে দিয়েছি। বাকী কাজ জয়নাল আবেদীন তার নিজস্ব ব্যস্থাপনায় বেসরকারি কনস্ট্রাকশন ঠিকাদারদের দিয়ে সম্পন্ন করেছেন।

খোদ রাজধানীতে নকশা অনুমোদন ছাড়া বহুতল ভবন নির্মান প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিধ মো: সিরাজুল ইসলাম বলেন, এমন ধরনের অবৈধ কাজ কোনভাবেই হওয়া উচিত না। এটা ইমারত নির্মান বিধি বহির্ভুত। বিষয়টা যদিও রাজউকের তবুও আমি বলবো এটা আইনের পরিপন্থী। এমন কাজ কেউ করে থাকলে অবশ্যই রাজউককে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

এদিকে, রাজউক জোন-৫ এর অথোরাইজড অফিসার নুরুজ্জামান জাহিরের সঙ্গে একাধীকবার যোগাযোগ করেও তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

রাজউকের উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন-২ শাখার পরিচালক তানজিলা খানম জানান, নকশা অনুমোদন ছাড়া ভবন নির্মান অবৈধ। আমাদের জনবল সঙ্কটের কারণে অনেকসময় সঠিকভাবে তদারকি করা যায়না। আর এই সুযোগে অনেকে রাজউকের ছাড়পত্র ছাড়াই অবৈধভাবে ভবন নির্মান করে থাকে। যার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তিনি যদি রাজউকের অনুমোদন ছাড়া ভবন নির্মাণ করে থাকেন অবশ্যই তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কমেন্ট

<<1>>

নাম *

কমেন্ট *

সম্পর্কিত সংবাদ

© ২০১৬ | এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি | dainikprithibi.com
ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট - মোঃ রেজাউল ইসলাম রিমন